Main Menu

৩ বছরে সিলেটে জ্বালানি বিভাগের ৪৭ কর্মকর্তার বিদেশ সফর

গত তিন বছরে জ্বালানি বিভাগের ৪৫৩ জন কর্মকর্তা বিদেশ সফর করেছেন। এর মধ্যে আছেন সিলেটের জালালাবাদ গ্যাস টি অ্যান্ড ডি সিস্টেমের (জেজিটিডেএসএল) ৫ জন এবং সিলেট গ্যাস ফিল্ডসের (এসজিএফএল) ৪২ জন বিদেশ সফরে যান।

 

সংশ্লিষ্ট বিষয়ে জ্ঞান অর্জনের জন্য প্রশিক্ষণ বা কর্মশালায় অংশ নিতে এসব সফরের অনুমোদন দেওয়ার কথা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হলেও তা অপ্রয়োজনীয় বিদেশ সফর নিরুৎসাহিত করতে বলেছে সংসদীয় কমিটি।

 

রোববার সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কর্মকর্তাদের বিদেশ সফরের এ তথ্য জানানো হয়েছে।

 

সংসদীয় কমিটির বৈঠকের কার্যপত্রে দেখা যায়, মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন ১০টি সংস্থা ও কোম্পানির এই ৪৫৩ কর্মকর্তা ১০১টি সফরে এ বিদেশ ভ্রমণ করেন গত তিন বছরে।

 

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশনের (বিপিসি) ৭০ জন, পেট্রোবাংলার ৩৯ জন, বাংলাদেশ ভূতাত্ত্বিক জরিপ অধিদপ্তরের (জিএসবি) ৮ জন, তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (জিটিডিসিএল) ২০ জন, কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির (কেজিডিসিএল) ২৮ জন, জালালাবাদ গ্যাস টি অ্যান্ড ডি সিস্টেমের (জেজিটিডেএসএল) ৫ জন, বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম এক্সপ্লোরেশন অ্যান্ড প্রোডাকশন কোম্পানির (বাপেক্স) ৯৩ জন, গ্যাস ট্রান্সমিশন কোম্পানির (জিটিসিএল) ১১০ জন, বাংলাদেশ গ্যাস ফিল্ডস কোম্পানির (বিজিএফসিএল) ৩৮ জন এবং সিলেট গ্যাস ফিল্ডসের (এসজিএফএল) ৪২ জন বিদেশ সফরে যান।

 

বিদেশ সফরের কারণ হিসেবে জ্বালানি বিভাগের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘উন্নত নতুন প্রযুক্তি ও কোনো বিষয়ের পরীক্ষিত ধারণা/প্রয়োগ দেশের তেল,গ্যাস ও কয়লা খাতে বাস্তবায়ন করা হয়। ফলে প্রকল্প সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের বিদেশে প্রশিক্ষণ/সেমিনার/কর্মশালায় অংশগ্রহণের মাধ্যমে সে সকল বিষয়ে জ্ঞান ও ব্যবহারিক প্রয়োগ সম্পর্কে জ্ঞান অর্জনের জন্য প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত রাখা হয়। এসব সফর যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদনক্রমে হয়।’

 

এ বিষয়ে কমিটির সভাপতি শহীদুজ্জামান সরকার সাংবাদিকদের বলেন, ‘বৈঠকে অপ্রয়োজনীয় বিদেশ সফর নিরুৎসাহিত এবং বিদেশ সফরে যাতে সরকারের অর্থের অপচয় না হয়, সে বিষয়ে মন্ত্রণালয়কে পদক্ষেপ নেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে।’

 

শহীদুজ্জামান সরকারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে কমিটির সদস্য আবু জাহির, আছলাম হোসেন সওদাগর, খালেদা খানম ও নার্গিস রহমান অংশ নেন।

 

সংসদ সচিবালয় থেকে জানানো হয়, বৈঠকে বিদেশ সফরের পর একটি প্রতিবেদন নিজ নিজ সংস্থার কাছে উপস্থাপনের সুপারিশ করা হয়।






Related News

Comments are Closed