প্রচ্ছদ

সুবর্ণচরে বৃদ্ধা নারীকে পিটিয়ে হত্যা সাড়ে ৪ মাসেও প্রধান আসামীরা ধরা পড়েনি

Eurobanglanews24.com

সুবর্ণচরে বৃদ্ধা নারীকে পিটিয়ে হত্যা
সাড়ে ৪ মাসেও প্রধান আসামীী ধরা পড়েনি

মো: ইমাম উদ্দিন সুমন, নোয়াখালী প্রতিনিধি: নোয়াখালীর সুবর্ণচরে ধানের বীজ তলায় হাঁস যাওয়া কেন্দ্র করে দু’পক্ষের মধ্যে ঝগড়া বিবাদ হয় এক পর্যায়ে বৃদ্ধা নারী আমেনা বেগমকে পিটিয়ে হত্যা করে চর হাসান গ্রামের কবিরের পুত্র আলমগীর হোসেন (২৫) একই গ্রামের আবু তাহেরের পুত্র জয়নাল আবেদিন শিপন (২৩), মৃত মৌলবী হরিছ মিয়ার পুত্র হাবিবুর রহমান হাবিব মিকার (৫০), হাবিব মিকারের ছেলে সুজন(৩০), আরিফ (২৪), মৃত ইব্রাহিম খলিলের পুত্র হোরন মিয়া (৫০) হোরন মিয়া পুত্র সিরাজ(৩০), সেকান্তর মিয়ার পুত্র শামীম (২৭), মৃত ইব্রাহিম খলিল এর পুত্র কবির (৪০), আবু তাহের(৪৭), লক্ষীপুর জেলার কল্যাণ পুর গ্রামের রফিক মিয়ার পুত্র ইউছুফ নবী লিটন(২৮) ।

নিহত আমেনা বেগম (৫৫), উপজেলার চরজব্বার ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের চর হাসান ভূঁইয়ার হাট গ্রামের তছিরের বাড়ির শাহে আলম’র স্ত্রী। নিহতের পুত্র শেখ ফরিদ বাদী হয়ে ঘটনার পরের দিন ২ জুলাই উপরোক্ত ব্যাক্তিদের আসামী করে চর জবব্বার থানায় একটি হত্যা মামলা (এজাহার) দায়ের করে মামলা নং ১৩০০/২০।

কিন্ত্র দির্ঘ সাড়ে চার মাস পার হয়ে গেলেও হত্যার প্রধান আসামি চর হাসান গ্রামের কবিরের পুত্র আলমগীর হোসেন(২৫) এবং একই গ্রামের আবু তাহেরের পুত্র জয়নাল আবেদিন শিপন (২৩), হাবিব মিকারের ছেলে সুজন (৩০), আরিফ (২৪), মৃত ইব্রাহিম খলিলের পুত্র হোরন মিয়া (৫০) হোরন মিয়ার পুত্র সিরাজ(৩০), সেকান্তর মিয়ার পুত্র শামীম (২৭) এখনো গ্রেফতার না হওয়া ক্ষোভ প্রকাশ করছেন এলাকাবাসী ও নিহতের পরিবার।

হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত চর হাসান গ্রামের মৃত মৌলবী হরিছ মিয়ার পুত্র হাবিবুর রহমান হাবিব মিকার, (৫০), মৃত ইব্রাহিম খলিল এর পুত্র কবির (৪০), আবু তাহের(৪৭), লক্ষীপুর জেলার কল্যাণ পুর গ্রামের রফিক মিয়ার পুত্র ইউছুফ নবী লিটন(২৮)কে গ্রেফতার করে চরজব্বার থানা পুলিশ পরে তাদেরকে জেল হাজতে প্রেরণ করে, বর্তমানে তারা জামিনে রয়েছেন ।

নিহতের পুত্র শেখ ফরিদ বলেন, “সম্প্রতি জামিন পাওয়া আসামিগণ জামিনে বের হয়ে মামলা তুলে নিতে আমাকে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে এবং হত্যা ও গুম খুনের হুমকি দিয়ে যাচ্ছেন , আমি প্রধান আসামিদেরকে গ্রেফতার করে আমার মায়ের হত্যার কারিদের উপযুক্ত বিচার চাই”।

মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা চর জবব্বার থানার এস আই দিপকের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ঘটনার পর পর কয়েকজন আসামীকে গ্রেফতার করে জেল হজতে প্রেরণ করা হয়েছে, বর্তমানে তারা জামিনে আছেন, বাকি পলাতক আসামীদের গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত আছে।

উল্লেখ্য, গত (১ জুলাই) বুধবার সুবর্ণচর উপজেলা ১ নং চর জবব্বার ইউনিয়ন পরিষদের চর হাসান ভূঁইয়ার হাট গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে বিকেল ৪টার দিকে আহত আমেনা বেগম (৫৫)মারা যান।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সকালে নিহত আমেনা বেগম’র পালিত হাঁস প্রতিবেশী সেকান্তর বাড়ির কবিরের স্ত্রী হালিমা বেগমের ধানের বীজ ক্ষেত নষ্ট করলে তারা কয়েকটি হাঁস আটক করে। খবর পেয়ে এ নিয়ে প্রতিবেশী সঙ্গে ঝগড়ায় জড়ান নিহত আমেনার ছেলে রহীম । একপর্যায়ে কবিরের ছেলে আলমগীর তার সহযোগী শিফন, সুজন, আরিফ, সিরাজ, শামীম, হোরন, দৌঁড়ে এসে রহিমকে মারধর করে। মারধরের খবর পেয়ে রহীমের বৃদ্ধা মা আমেনা বেগম এগিয়ে এলে আলমগীর রট দিয়ে আঘাত করলে ওই বৃদ্ধা ঘটনাস্থলে মাথা ফেটে অচেতন হয়ে পড়ে। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল ৪টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

অপরদিকে দুপুর ২টার দিকে নিহত আমেনা বেগম’র ছেলে রহীম এবং কামাল আজাদ মায়ের জন্য মেডিকেলে ভাত নিয়ে যাওয়ার পথে আলমগীর ও তার কয়েকজন আবারো ঝগড়া বিবাদে লিপÍহন, এতে উভয় পক্ষের আরও ৫ জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে কবিরের ভাগ্নে হাবিব মিকারের ছেলে সুজন(৩০) গুরুত্বর আহত অবস্থায় ঢাকায় প্রেরণ করা হয়।

মো: ইমাম উদ্দিন সুমন, নোয়াখালী প্রতিনিধি: তারিখ ১৫-১১-২০

বিনোদন

আর্কাইভ

December 2020
M T W T F S S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  

বিজ্ঞাপন