প্রচ্ছদ

” লালশাড়ি ” ফারহানা মোবিন, চিকিৎসক ও লেখক

Eurobanglanews24.com
  • ¢

আমার সবটুকু উজাড় করে আমি তোমাকে পাগলের মতো ভালোবেসেছিলাম। তোমার পরিবারের সবাই কে আমি কাবিনের কাগজ হবার আগেই আপন করেছিলাম।

তুমি কিভাবে পারলা, একটা ফ্ল্যাট এর মালিক হবার জন্য, আরেক জায়গায় বিয়ে ঠিক করে রেখে, আমার কাছে লুকিয়ে, আমার সাথে সম্পর্ক গড়তে???

কিভাবে পারলা!!!

আমার হাত ধরে রেখে, আরেক নারীকে
লিখেছো, ” নারী আর প্রকৃতির মাঝে আলাদা করা যায় না। ”
অপর আরেক জন কে লিখেছো, ” আপনার সম্পর্ক ভেঙে গেছে, কষ্ট পাবার কিছু নেয়। পুরোনো ইট, কাঠ, পাথর আর বালু দিয়ে আরোও শক্ত ঘর নতুন ভাবে বানানো যাবে। ”

তোমার সাথে সম্পর্ক রেখে আমি যদি আরেক পুরুষ মানুষ কে এই কথা বলতাম, তবে পারতা হাসিমুখে সবকিছু মেনে নিতে???

তুমি বলেছিলে, ” আমি জানি, তুমি কোনও দিন আমার হবেনা, সিদ্ধান্ত নিতে হলে অনেক আগেই তুমি সিদ্ধান্ত নিতে। ”

তোমাকে অন্ধ ভালোবেসে আমি এক ধাপ তোমার দিকে গেছি। আর তোমার কাছে আঘাত পেয়ে দশ ধাপ পেছনে চলে এসেছি।

তোমার কাছে মেয়েদের বিশাল বড়ো একটা লিষ্ট ছিল। আর সেই লিষ্ট এর সবচেয়ে নীচের সিরিয়াল এর আমি একজন। আর আমার মনের মাঝে একটাই অবস্থান। আর সেই জায়গায় শুধুমাএ তুমি।

আমি পথ চেয়ে থেকেছি, কখন তুমি বলবা, ” আমি শুধু তোমাকেই চাই…! ”

আর তুমি আমার এক হাত ধরে রেখে, আরেক নারীর হাত ধরেছো। কিভাবে তোমাকে নিয়ে বাঁচবো বলো???

ভালোবাসা ছাড়া কোন ঘর হয়না। আমি ঠিকই উপলব্ধি করেছি, তুমি আমাকে ভালোবাসোনি। আরেক জায়গায় বিয়ে ঠিক করে রেখে, শুধু আমাকে নিয়ে কিছু সময় পার করেছো।

আমার খুব শখ ছিল, তুমি লাল রঙের একটা শাড়ি কিনে আমাকে বলবা, ” এই শাড়িতে তোমাকে খুব সুন্দর লাগবে। ”

লাখ টাকার শাড়ি আমি চাইনি, দামী রেষ্টুরেন্টের দামী খাবার আমি চাইনি, ফ্ল্যাট গাড়ী কিনে দিতেই হবে, এমনটা কোনও দিন বলিনি। তোমার টাকায় আমার কোন লালসাবোধ নেয়।

কিন্তু যখন দেখেছি, আমাকে সামান্য একটা শাড়ি কিনে দেয়ার টাকা আর সময় তোমার হয়নি… অথচ নিজের উপকারের জন্য বান্ধবী কে তুমি হীরের নাক ফুল উপহার দিয়েছো।

নিজের পকেটে টাকা থাকার পরেও তুমি আমাকে টাকার জন্য চাপ দিয়েছো। তোমার উপর নির্ভর করে, কিভাবে ঘর বানাবো বলো…???

তুমি যদি আমাকে ভালোবাসতা, তাহলে মাএ তিনটা মাস তুমি আমার জন্য ঠিকই অপেক্ষা করতে পারতা।
এতোটা জোরালো ভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়ার কথা আমি তোমাকে কোনদিন বলতে পারিনি।

আমি তোমার সাথে ঝগড়া, মান অভিমান করেছি। তুমি আমার ঝগড়া কে শুধু পরিমাপ করেছো। তোমার কষ্টে আমি কাতর হয়ে যাই, তা তুমি কখনোই উপলব্ধি করতে পারোনি।

আমি জানি, আমার এই লেখা তুমি কোনওদিন পড়বা না। আমার আহাজারি কোনও দিন তোমার মন ছুয়ে যাবেনা।

কারন তুমি আমাকে ভালোই বাসোনি। আর আমি এতোটাই বোকা যে, আমি ভাবতাম তুমি আমাকে ভালোবাসো।
অথচ আমার সবটুকু জুড়ে তুমি। অন্য কাউকে দেবার মতো ভালোবাসা আমার মনের মাঝে নেই।

আমি যদি খুব সুখী হতাম তাহলে তোমাকে ভুলে যেতাম। তুমি কিভাবে পারলা, আমাকে নিয়ে এতোগুলো দিন এইভাবে নাটক করতে???

তুমি কিভাবে পারলা???

তুমি আমাকে এতো নিম্নমানের মেয়ে ভাবতা আমার জানা ছিল না। আমি রাগ করে অগণিত বার তোমার ফোনের লাইন কেটে দিয়েছি। তোমার সাথে হাজার বার চিতকার চেচামেচি করেছি।

বিশ্বাস করো, এতো ঝগড়া আমি কোনওদিন কারো সাথে করিনি। তোমার মতো পৃথিবীর কোনও পুরুষ মানুষ কে আমি কোনও দিনও এতোটা ভালোবাসিনি।

তোমার পারিবারিক জীবনে আমি কোনও দিন একবিন্দু আঘাত করিনি।

সেই তুমি কিভাবে পারলা, আমার কাছে সবকিছু লুকিয়ে রেখে, আরেক জায়গায় বিয়ে ঠিক করে, আমাকে নিয়ে কিছু সময় পার করতে…???

ঠিকই করেছো। তুমি তো আমাকে ভালোবাসোনি।
সবকিছু, সব হিসেব ছিলো অনেক আগে থেকে তৈরী।

আমি তোমাকে অন্ধ ভালোবেসে, তোমার সব কথা বিশ্বাস করেছি।

তুমি তোমার ফ্ল্যাট নিয়ে সুখী হও।

তোমার আপনজনদের তুমি বলেছো, ” ঐ মেয়েকেই বিয়ে করবো, তার একটা ফ্ল্যাট আছে। ”

আর আমাকে বলেছো, ” তোমার বাসায় দেখা করে বলবো, আমরা একটা সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছি। ”

তুমি পারলা আমাকে এইভাবে ঠকিয়ে দিতে, পারলা!!!
এইভাবে নাটক করতে পারলা…!!!

আমাকে গলা চেপে মেরে ফেলোনি কেন…!!!

আমি তোমার দেয়া আঘাত নিতে পারিনা।

তোমার ফ্ল্যাট নিয়ে তুমি সুখী হও। তোমাদের মাঝে আমি কোনও দিনও আসবোনা।

তোমার দাম্পত্য জীবনে একবিন্দু আঘাত করার কোনও ইচ্ছে আমার নেই । আমি আজীবন তোমার উন্নতি চেয়েছি আর চাইবো।

তোমার বিবাহিত জীবন নিরাপদ রাখার জন্য আমার মোবাইল নম্বর কোনও পুরুষ মানুষ কে কষ্ট করে, তোমার দেয়ার কোনও দরকার নেয়। আমাকে এতোটা সস্তা আর সহজলভ্য ভেবোনা প্লীজ।

আমার মন জুড়ে ছিলে তুমি। কোনও পুরুষ মানুষ কে দেয়ার মতো ভালোবাসা আমার মনের মাঝে নেই। আমার একটাই ছিলে ” তুমি “।

আমার আর কেউ নেই ।

লালশাড়ি আমার দরকার নেই।

দীর্ঘ বছর আমি কাফনের কাপড় পড়ে জীবন পার করছি। শুধু বেঁচে থাকার জন্য, দায়িত্ব পালনের জন্য। আমি এভাবেই পৃথিবী থেকে বিদায় নিবো।

আমি জানি, আমার এই লেখা তুমি কোনও দিনও পড়বা না, আমার আহাজারি কোনও দিন তুমি উপলব্ধি করতে পারবা না…!!!

আমার এই কথা গুলো কোন দিনও তোমার অস্তিত্ব স্পর্শ করবেনা।

আমার জন্য সেই মন তোমার নেই ।

বিনোদন

আর্কাইভ

October 2020
M T W T F S S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031  

বিজ্ঞাপন