প্রচ্ছদ

শুরুতেই হোঁচট বার্সেলোনার

Eurobanglanews24.com

লা লিগের প্রথম ম্যাচেই তিন পয়েন্ট হারিয়েছে শিরোপাধারী বার্সেলোনা।

 

চোটের কারণে লিওনেল মেসিকে ছাড়াই অ্যাথলেটিকো বিলবাওয়ের মাঠে নেমেছিল বার্সেলোনা।  প্রথমার্ধে চোট পাওয়ায় দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নামা হয়নি লুইস সুয়ারেজ।  অভিষিক্ত গ্রিজম্যান ও ডি ঝং ছিলেন নিষ্প্রভ।  বায়ার্ন মিউনিখের সঙ্গে ট্রান্সফার পাকাপাকি হওয়ায় ফিলিপ কৌতিনহোর মাঠে নামা হয়নি।  সব মিলিয়ে বিলবাওয়ের মাঠে বার্সেলোনার ‘হযবরল’ অবস্থা ছিল।

 

সুযোগটি দারুণ কাজে লাগিয়েছে বিলবাও।  তাদের লিগের শুরুটা হলো স্বপ্নের মতো।  শেষ মুহূর্তের একমাত্র গোলে তারা হারিয়েছে কাতালানদের।  ম্যাচের ৮৯তম মিনিটে ধ্রুপদী এক বাই-সাইকেল কিকে ম্যাচের জয়সূচক গোলটি করেন স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড আরিৎস আদুরিস।  বিলবাওয়ের স্টেডিয়াম তখন শুধুই উল্লাস।

 

অবশ্য পুরো ম্যাচেই দাপটের সঙ্গে খেলেছে বিলবাও।  ম্যাচের সপ্তম মিনিটে উইলিয়ামের দূরপাল্লার শট ছিল ঠিকঠাক মতোই।  বল যাচ্ছিল গোলপোস্টের দিকে।  কিন্তু বার্সেলোনাকে বাঁচিয়ে দেন গোলরক্ষক টের স্টেগেন।  ডানদিকে ঝাঁপিয়ে বল ফিরিয়ে দেন তিনি।  আক্রমণের ধার ধরে রাখে বিলবাও।  ১৫ মিনিটে উইলিয়ামের আরেকটি শট ঠেকিয়ে দেন এ গোলরক্ষক।

 

 

 

 

শুরুতে এলোমেলো ফুটবল খেলা বার্সেলোনা ম্যাচের ৩২ মিনিটে সবথেকে বড় সুযোগটি পায়।  ভুল পাসে বিলবাওয়ের ডি বক্সের ভেতরে বল পেয়ে যান লুইস সুয়ারেজ।  পেছনে ঘুরে বলে শট নিয়েছিলেন।  কিন্তু বল আঘাত করে পোস্টে।  এর আগে কাফ মাসলে টান পড়েছিল তার। ওই শট নেওয়ার পর মাঠ থেকে উঠে যান উরুগুয়ের তারকা।

 

বিরতির আগে গোল করতে পারেনি কেউ।  বিরতির পরও ম্যাচ এগিয়ে যায় একই গতিতে। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে ম্যাচ এগিয়ে যায়।  কিন্তু ফিনিশিংয়ে ছিল ঘাটতি।  শেষ হাসিটা হাসে বিলবাও।  ডানপ্রান্ত থেকে হাওয়ায় ভাসানো বল পেয়ে বাই-সাইকেল কিকে গোল করেন আদুরিস।  ওই শটে কিছুই করার ছিল না স্টেগেনের।

 

প্রসঙ্গত, ছয় বছর পর বার্সেলোনার বিপক্ষে জয় পেল অ্যাথলেটিকো বিলবাও। এর আগে ২০১৩ সালে বিলবাও হারিয়েছিল কাতালানদের।

আর্কাইভ

সেপ্টেম্বর ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« আগষ্ট    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০