প্রচ্ছদ

সাংবাদিকদের দেশদ্রোহী, ভণ্ড বললেন কঙ্গনা

Eurobanglanews24.com

বিতর্ক যেন কঙ্গনা রনৌতের সমার্থক। কঙ্গনা যেখানে, বিতর্ক সেখানে- এই নিয়মের যেন কোনো ব্যত্যয় নেই। কঙ্গনার নতুন ছবি ‘জাজমেন্টাল হ্যায় কেয়া’র একটা প্রচার অনুষ্ঠানে গিয়ে একজন সাংবাদিকের সঙ্গে রীতিমতো বাগ্‌যুদ্ধ বাঁধিয়ে দিলেন। আর এখন সাংবাদিক পক্ষ সব একজোট হয়ে কঙ্গনাকে খারাপ ব্যবহার করার জন্য ক্ষমা চাইতে বলছে। আর ক্ষমা চাওয়ার পাত্র নন কঙ্গনা। তিনি এবার ভিডিওবার্তায় ওই সাংবাদিককে দেশদ্রোহী আর ভণ্ড বলছেন।

 

কঙ্গনা রনৌতের বোন ও ম্যানেজার রাঙ্গোলি চান্ডেল তাঁর টুইটার অ্যাকাউন্টে প্রকাশ করেছেন ওই ভিডিও। সেখানে দেখা যায়, কঙ্গনা বলেছেন, যে সব সাংবাদিকেরা জাতীয়তাবাদ নিয়ে তাঁর ধারণার সঙ্গে একমত পোষণ করেন না, তারা সবাই দেশদ্রোহী। কঙ্গনা আরও বলেন, মিডিয়া টাকার কাছে বিক্রি হয়ে গেছে। মিডিয়া মোটেই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে না। এর আগে কঙ্গনা ক্ষমা না চাইলে সাংবাদিকেরা তাঁকে বয়কট করার হুমকি দিয়েছিলেন।

 

এই হুমকির উত্তরে কঙ্গনা যা বলেছেন, তাতে সাংবাদিক মহলের কথা ফুরিয়ে যাওয়ার কথা। যারা কঙ্গনাকে বয়কট করতে চেয়েছে, কঙ্গনা তাঁদের অনুরোধ করেছেন তাঁকে বয়কট করার জন্য। কঙ্গনা বলেন, ‘প্লিজ, আপনারা আমাকে বয়কট করুন। ওই সাংবাদিকেরা আমাকে নিয়ে নিউজ করে বলেই তাদের ঘরে চুলা জ্বলে। তাঁদের পরিবার খেয়ে পরে বেঁচে থাকে। আমি চাই না, যাঁরা আমাকে অপছন্দ করে, আমাকে নিয়ে আজেবাজে লিখে তাঁরা জীবনধারণ করুক। আমি চাই না, দেশদ্রোহীরা আমাকে নিয়ে নেতিবাচক খবর করে অর্থ উপার্জন করুক।’

 

মানে কঙ্গনা বুঝিয়ে দিয়েছেন যে তিনি মিডিয়ার ধার ধারেন না, ধার ধারেন না কোনো সাংবাদিকেরও। বরং মিডিয়া আর সাংবাদিকরাই নাকি তাঁর ওপর নির্ভরশীল। তাই কঙ্গনাকে বয়কট করলে কঙ্গনার নাকি কোনো ক্ষতি নেই, ক্ষতি মিডিয়ার, ক্ষতি সাংবাদিকদের।

 

ওই ভিডিওতে কঙ্গনা নিজের বক্তব্যের পক্ষে যুক্তিও দিয়েছেন। কঙ্গনা বলেছেন, যিনি যত ভালো কাজই করেন না কেন, ওই সাংবাদিক তাঁর সম্বন্ধে কেবল খারাপ কথা লিখেছে। পরিবেশ দিবসে তিনি প্লাস্টিক বর্জনের ওপর একটা প্রচারণা চালিয়েছেন, সেটিকে ভালো চোখে দেখেননি ওই সাংবাদিক। বন দিবসে বন্য প্রাণীদের রক্ষা করার জন্য আর প্রাণীদের সঙ্গে নৃশংস আচরণ করার বিপক্ষে কথা বলেছেন, তা নিয়েও নাকি নেতিবাচক শিরোনাম লিখেছেন ওই সাংবাদিক। এমনকি কঙ্গনা নিজের ওভি ভ্যানে বসে তাঁর তিন ঘণ্টা ধরে সাক্ষাৎকার নিয়েও তাঁর সম্বন্ধে খারাপ খারাপ কথা লিখেছেন।

 

শুধু ভিডিওবার্তায় এগুলো বলেই ক্ষান্ত থাকেননি কঙ্গনা। আইনজীবী রিজওয়ান সিদ্দিককে দিয়ে প্রায় সমস্ত মিডিয়া হাউসে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন। সেখানে ওই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে সাংবাদিকতার নীতি ভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়েছে। বলা হয়েছে, ওই সাংবাদিক অপেশাদার আচরণ করেছেন। কঙ্গনাকে নিয়ে মিথ্যে রটিয়েছেন এবং প্রকাশ্যে তাঁর মানহানি করেছেন। ‘এন্টারটেইনমেন্ট জার্নালিস্ট গিল্ড’কে তাঁকে নয় বরং ওই সাংবাদিক ও ওই ধরনের সাংবাদিকদের বয়কট করতে বলা হয়েছে।

 

আর্কাইভ

জুলাই ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুন    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১