প্রচ্ছদ

ফল প্রকাশে দেরি ৭ কলেজের বড় সমস্যা

Eurobanglanews24.com

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর চাপ কমাতে ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হয় ঢাকা কলেজ, ইডেন কলেজ, শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, কবি নজরুল কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা মহিলা কলেজ, মিরপুর বাঙলা কলেজ ও তিতুমীর কলেজ। কলেজগুলোর প্রধান সমস্যা ফল প্রকাশে দেরি। আড়াই বছর পরও ৭ কলেজের এই সংকট কাটেনি। ঘোষণা করা হয়নি শিক্ষাপঞ্জিও। এ অবস্থায় ফের আন্দোলনে রাজধানীর সরকারী এসব কলেজের শিক্ষার্থীরা।

 

এবার তাদের ৫ দাবি। সেগুলো হচ্ছে-  সেশনজট নিরসনে শিক্ষাপঞ্জি দ্রুত চালু, পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে ফল প্রকাশ, এর আগে প্রকাশ হওয়া কয়েকটি পরীক্ষার ফলাফলে ‘গণহারে’ অকৃতকার্য হওয়ার কারণ উল্লেখসহ খাতা পুনর্মূল্যায়ন, সাত কলেজ পরিচালনায় স্বতন্ত্র প্রশাসনিক ভবন স্থাপন ও সিলেবাস অনুযায়ী প্রশ্নপত্র প্রণয়নসহ সাত কলেজের শিক্ষকদের দিয়েই উত্তরপত্র মূল্যায়ন। এর আগেও একাধিকবার এসব দাবিতে বিক্ষোভ করেছিলেন শিক্ষার্থীরা।

 

 

 

তারা জানান, পরীক্ষা ও ফল প্রকাশ দুই দিক দিয়েই স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতক পাস (ডিগ্রি) কোর্সের শিক্ষার্থীরা পিছিয়ে আছেন। যেমন স্নাতকে (সম্মান) ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের প্রথম বর্ষের পরীক্ষা শেষ হয়েছে সাত মাস আগে। কিন্তু এখনো ফল প্রকাশিত হয়নি। অথচ এসব শিক্ষার্থীর দ্বিতীয় বর্ষের পরীক্ষা নভেম্বরে নেয়ার কথা চলছে।

 

২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি হওয়া কয়েকজন জানান, স্নাতক (সম্মান) চূড়ান্ত পরীক্ষা শেষ হয়েছে ফেব্রুয়ারির শুরুর দিকে। এখনো ফলের খবর নাই।  চার বছরের স্নাতক (সম্মান) কোর্স শেষ হতে সাড়ে পাঁচ বছরের বেশি লাগছে।

 

অন্যদিকে স্নাতক পাস কোর্সের শিক্ষার্থীদের অবস্থা আরো করুণ। ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি হওয়া প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের মাত্র বর্ষ ফাইনাল পরীক্ষা চলছে। তাদের এক বছরের কোর্স শেষ হতে প্রায় আড়াই বছর লাগছে।

 

আন্দোলনকারীরা বলেছেন, তারা সবার চেয়ে পিছিয়ে আছেন। যেমন ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের স্নাতক (সম্মান) চতুর্থ বর্ষের পরীক্ষা প্রায় পাঁচ মাস আগে হলেও এখনো ফল প্রকাশিত হয়নি। অথচ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন একই শিক্ষাবর্ষের স্নাতকের ফল প্রকাশিত হয়ে গেছে। এমনকি তাঁদের স্নাতকোত্তর (মাস্টার্স) পরীক্ষার ফরম পূরণেরও প্রস্তুতি চলছে। আর একই শিক্ষাবর্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের স্নাতকোত্তর শেষ হয়েছে আরো প্রায় চার মাস আগে।

 

 

 

এদিকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা সোমবার ঢাকা কলেজের সামনে থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তি ও গণতন্ত্র তোরণ (নীলক্ষেত দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশদ্বার) পর্যন্ত বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। তারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্যকে স্বারকলিপি দিলে উপাচার্য তাদের দাবি মেনে নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন। এর আগে ২০১৭ সালের জুলাইয়ে পাঁচ দফা দাবিতে রাজধানীর শাহবাগে অধিভুক্ত কলেজের শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের সময় পুলিশের ছোড়া কাঁদানে গ্যাসের শেলে চোখ হারান তিতুমীর কলেজের ছাত্র সিদ্দিকুর রহমান।

 

জানা যায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান দেখা করেছেন। তখন প্রধানমন্ত্রী তাকে বলেছেন অধিভুক্ত কলেজের শিক্ষার্থীদের প্রতি যত্নশীল হতে। সেশনজটের কারণে শিক্ষার্থীদের সময় যাতে নষ্ট না হয়। শিক্ষার মান বজায় রাখার পাশাপাশি যে উদ্দেশে ৭ কলেজ অধিভুক্ত করা হয়েছিল, তা যেন ব্যাহত না হয়।

 

আন্দোলনকারীদের নেতা এ কে এম আবু বকর জানান, তাদের দাবি সঠিক সময়ে পরীক্ষা ও ত্রুটিমুক্ত ফল প্রকাশ করা।

 

বিনোদন

আর্কাইভ

অক্টোবর ২০১৯
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« সেপ্টেম্বর    
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১