প্রচ্ছদ

অপেরা নয়, অপরেরা

Eurobanglanews24.com

নাটকের নাম অপরেরা। ভাবছেন ভুল লেখা হয়েছে? মোটেও না। ‘অপরেরা’ নাটকটিই মঞ্চে আসছে ১০ জুলাই বুধবার। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটমণ্ডলে ১৪ জুলাই পর্যন্ত পরপর ৫ দিন প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭টায় নাটকটি মঞ্চস্থ হবে।

 

নাটকটি আনছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগ। নাটকটির পরিকল্পনা ও নির্দেশনা দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের থিয়েটার অ্যান্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আশিক রহমান লিয়ন। যেখানে অভিনয় করবেন স্নাতক তৃতীয় বর্ষের পঞ্চম সেমিস্টারের শিক্ষার্থীরা।

 

এ নাটকের বড় বৈশিষ্ট্য হচ্ছে ৬টি প্রকৃতিবাদী ও বাস্তববাদী নাটকের আশ্রয় তৈরি হয়েছে ‘অপরেরা’র গল্প। এ নাটকগুলো হলো আগস্ট স্টিন্ডবার্গের ‘দ্য ফাদার’ ও ‘মিস জুলি’, হেনরিক ইবসেনের ‘এ ডল’স হাউজ’, ‘দ্য লেডি ফ্রম দ্য সি’ এবং আন্তন চেখভের ‘থ্রি সিস্টার্স’ ও ‘দ্য সীগাল’। নির্দেশক আশিক রহমান বলেন, ‘যেহেতু নাটকটি পরীক্ষা প্রযোজনা, তাই অভিনেতা ছাত্রছাত্রীরা যাতে তাদের অভিনয় দক্ষতা অর্জন ও প্রকাশে সক্ষম হয় সেই লক্ষ্যে পৃথিবী বিখ্যাত ৩ জন বাস্তববাদী ও প্রকৃতিবাদী নাট্যকারের মোট ৬টি নাটকের নানা অংশ হতে বাছাই করে প্রযোজনাটি নির্মাণ করা হয়েছে। যেখানে এরিনা মঞ্চ অর্থাৎ শিল্পীরা চারপাশে অবস্থিত দর্শকের মাঝখানে অভিনয় করবে। নাটকটিতে নারী, পুরুষ, স্বামী, স্ত্রী, সন্তান নানাবিধ সম্পর্কের রসায়ন, সুখ, বেদনা, দহন, জটিলতা উপস্থাপিত হয়। বহি বিশ্বের নাটক সমূহের অবলম্বনে এই নাটকটি নির্মাণ হলেও শেষমেশ ‘অপরেরা’ নাট্যপ্রযোজনাটি হয়ে উঠবে স্থানীয়।নির্দেশক আশিক রহমান লিয়ন জানান, রুশ স্বভাববাদী নাট্যকার আন্তন চেখভের দ্য সিগাল থেকে নেওয়া হয়েছে অপরেরা নাটকের প্রথম দৃশ্য। এই দৃশ্যের কাঠামো গড়ে উঠেছে নাটকের ভেতরে নাটকের বুননে। বাস্তববাদী নাট্যের পথিকৃৎ নরওয়ের নাট্যকার হেনরিক ইবসেন প্রণীত এ ডল’স হাউস নাটক থেকে ছেঁকে নিয়ে দ্বিতীয় দৃশ্যে তৈরি হয়েছে। ইবসেনের প্রতীকবাদী বৈশিষ্ট্যের নাটক দ্য লেডি ফ্রম দ্য সি থেকে নেওয়া হয়েছে অপরেরা নাটকের তৃতীয় দৃশ্য। সুইডিশ স্বভাববাদী ও অভিব্যক্তিবাদী নাট্যকার আগস্ট স্ট্রিন্ডবার্গের দ্য ফাদার থেকে এসেছে অপরেরার চতুর্থ দৃশ্য। চেখভের দ্য সীগাল থেকে এসেছে অপরেরার পঞ্চম দৃশ্য। আগস্ট স্ট্রিন্ডবার্গের মিস জুলি থেকে নেওয়া হয়েছে ছয় নম্বর দৃশ্যটি। চেখভের থ্রি সিস্টার্স থেকে এসেছে এ নাটকের সপ্তম দৃশ্য। হেনরিক ইবসেন প্রণীত এ ডল’স হাউস নাটক থেকে আবারও ছেঁকে নিয়ে এই প্রযোজনার অষ্টম দৃশ্যের নির্মাণ। একই নাট্যকরের দ্য লেডি ফ্রম দ্য সি থেকেই নেওয়া হয়েছে প্রযোজনার সর্বশেষ দৃশ্য।

 

এর আগে ‘হ্যামলেট’, ‘শ্রাবণ ট্র্যাজেডি’, ‘নিশিমন বিসর্জন’, ‘মৃচ্ছকটিক’, ‘রাইডারস টু দ্য সী’, ‘বিট্রেয়াল’, ‘মহুয়া’ প্রভৃতি নাটক নির্দেশনা দিয়ে প্রশংসিত হয়েছেন আশিক রহমান লিয়ন। নাটকটির ব্যাখ্যা তাত্ত্বিক পরামর্শক (ড্রামাতার্গ) শাহমান মৈশান। তিনি বলেন, ভালোবাসা, দাম্পত্য ও বাসনার একটি অনুপুঙ্খ নাট্যিক ব্যবচ্ছেদনামা অপরেরা নাটকটি। শিল্প-বিপ্লবোত্তর আধুনিক ইউরোপীয় নাট্য ভুবনের এই নাট্যকারদের নাটকগুলো নরনারীর বহুমাত্রিক সম্পর্কের উদ্ভাবনী বয়ানের জন্য এগুলো মাস্টারপিসে পরিণত হয়েছে। প্রণয় ও পরিণয় এবং শিল্প ও শিল্পী-এই দুই স্তরে ভালোবাসা কী করে বিকশিত হয়, বিক্রিয়া করে ও পরিণতির দিকে ধেয়ে যায় এই ভাবনারাজি প্রযোজনায় নিরীক্ষিত ও সৃজিত হয়েছে ‘অপর’ ধারণা দিয়ে।নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন তৌহিদুর রহমান, সাদিয়া আফরিন তামান্না, ইন্দ্রাণী দাশ নিশি, নাদিরা আঞ্জুম মিমি, ওয়াজেদ শাহরিয়ার হাশমী, মো: আশরাফুল ইসলাম, তাসলিমা হোসেন নদী, মহিউদ্দিন চৌধুরী, মোহামিন আক্তার, যারীন তাসনীম, দেবাশীষ কুমার দে প্রশান্ত, মোহনা হোসেন, অপূর্ব চক্রবর্তী এবং মো. জাহিদ হাসান।